মঙ্গলবার, ২৮ Jun ২০২২, ১১:২৩ পূর্বাহ্ন

সুপ্রিম কোর্টের অনলাইন শুনানির জন্য দুটি বেঞ্চ গঠন ও নির্দেশিকা জারী

সুপ্রিম কোর্টের অনলাইন শুনানির জন্য দুটি বেঞ্চ গঠন ও নির্দেশিকা জারী

Spread the love

সুপ্রিম কোর্টের অনলাইন শুনানির জন্য তিনটি বেঞ্চ গঠিত

করোনা পরিস্থিতিতে দেশের আইনী ব্যবস্থা মারাত্মকভাবে ব্যহত হচ্ছে। আইনজীবিরা বাসায় অলস সময় কাটাচ্ছেন। শতশত মামলা ঝুলে আছে। এতোদিনে কয়েক হাজার মামলা খালাস হতো বলে ধারণা আইনজীবীদের।এমতাবস্থায় দেশের আইনী প্রক্রিয়াকে চালিয়ে নিতে সরকার ব্যতিক্রমি উদ্যোগ নিয়েছে। চালু করা হয়েছে অনলাইন শুনানি ব্যবস্থা।অবশ্য দেশে অনলাইন শুনানি ব্যবস্থা নতুন নয়।২০১৪-১৫ সালে বেগম জিয়ার মুক্তি ও বিভিন্ন মামলার হাজিরা অনলাইনে নেওয়া হয়েছে।
সুপ্রিম কোর্টে অনলাইনে শুনানির জন্য তিনটি বেঞ্চ গঠিত হয়েছে। সেই তিনটি বেঞ্চে কিভাবে অনলাইনে শুনানি হবে তা Practice Directions এ বিস্তারিত বলা হয়েছে।

যেমন পিটিশনগুলো Times New Roman ফন্টের 14 সাইজে ডাবল স্পেসে টাইপ করতে হবে এবং এগুলোর সফট কপি ই-মেইলে পাঠাতে সবে। এছাড়া নীল কাগজে প্রিন্ট করা রেগুলার ফরম্যাটের পিটিশনও স্ক্যান করে পাঠানো যাবে।

মামলার অন্যান্য ডকুমেন্টগুলো স্ক্যান করে পিডিএফ ফরম্যাটে নিয়ে মেইল করতে হবে। সেসব ডকুমেন্ট আইনজীবী কতৃক সত্যায়িত হতে হবে।

ওকালতনামার মধ্যে অবশ্যই আইনজীবীর মোবাইল ফোন নম্বর, ইমেইল ঠিকানা এবং আইনজীবী সমিতির সদস্য নম্বর উল্লেখ থাকতে হবে। ওকালতনামাটিও স্ক্যান করে পিডিএফ ( Portable Document Format) বানিয়ে ইমেইলে পাঠাতে হবে।

ভিডিও কনফারেন্সের জন্য জুম ব্যবহার না করে মাইক্রোসফট টিমস সফটওয়্যার ব্যবহারের নির্দেশ দিয়েছেন মহামান্য সুপ্রিম কোর্ট। গুগল প্লে স্টোরে যেয়ে মাইক্রোসফট টিম নামের এই ফ্রি অ্যাপটি দেখতে পারেন।

কোর্ট ফি কোর্ট খুলবার পরে দাখিল করতে বলা হয়েছে।

আশা করা যায় এভাবে বাংলাদেশের সব আদালতেই দ্রুত বিচার কাজ অনলাইনে শুরু হয়ে যাবে।

মামলা সুপ্রিম কোর্টে শুনানি করতে চাইলে সুপ্রিম কোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের বেঞ্চ অফিসারের ঠিকানাতে ইমেইল করে এক পৃষ্ঠার মধ্যে জানাতে হবে কেনো দরখাস্তটি শুনানি করা জরুরী। ৷৷ অনলাইনে আদালত পরিচালনার দাবিতে প্রধান বিচারপতিকে চিঠি
করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ঘরে থাকার নির্দেশনা দিয়ে জারি করা সরকারি ছুটির মাঝেই অনলাইনে সুপ্রিম কোর্টসহ অন্যান্য আদালতের কার্যক্রম পরিচালনার অনুরোধ জানিয়ে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনকে চিঠি পাঠিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের দুই আইনজীবী।

শনিবার (১৮ এপ্রিল) সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের মাধ্যমে ই-মেইল যোগে প্রধান বিচারপতিকে এই চিঠি পাঠানো হয়।

মানবাধিকার সংগঠন চিলড্রেন চ্যারিটি বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের (সিসিবি ফাউন্ডেশন) পক্ষে এর চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার মো. আব্দুল হালিম ও পরিচালক অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান এ চিঠি পাঠান।

চিঠিতে বলা হয়, করোনার সংক্রমণ রোধে সরকারিভাবে ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। যেহেতু দেশে কোনো জরুরি অবস্থা জারি করা হয়নি সেহেতু স্বল্প পরিসরে হলেও আদালতের কার্যক্রম পরিচালিত হওয়া জরুরি। কেননা, বাংলাদেশ সংবিধানে দেশের নাগরিকদের অধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে। সরকার এসব অধিকার বাস্তবায়নে ব্যর্থ হলে সংবিধান অনুসারে উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হওয়ার সুযোগ রয়েছে। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে দেশের উচ্চ আদালতসমূহ একেবারেই বন্ধ থাকায় নাগরিকরা তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত হলে আদালতের দ্বারস্থ হওয়া থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। তাই করোনা সংক্রমণের মধ্যেও সাংবিধানিক বিবেচনায় অনলাইনের মাধ্যমে হাইকোর্টের এক বা একাধিক বেঞ্চ পরিচালনার অনুরোধ জানানো হলো।

মহামারি করোনাভাইরাসে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৯ জন মারা গেছেন। ফলে ভাইরাসটিতে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৮৪ জনের। করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন আরও ৩০৬ জন। ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে দুই হাজার ১৪৪ জনে। আর সুস্থ হয়েছেন ৬৬ জন। মার্চের ৮ তারিখে দেশে প্রথম শনাক্ত হয় করোনাভাইরাস

 1,128 total views,  2 views today

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesba-zoom1715152249
© আইন আদালত প্রতিদিন। সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
ডিজাইন ও ডেভেলপে Host R Web