বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২, ১১:০৪ পূর্বাহ্ন

সিটি নির্বাচন ঘিরে কঠোর নারায়ণগঞ্জ পুলিশ

সিটি নির্বাচন ঘিরে কঠোর নারায়ণগঞ্জ পুলিশ

Spread the love

নুর ইসলাম নাহিদ :
আগামীকাল (১৬ জানুয়ারি) রোববার অনুষ্ঠিত হবে নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচন তাই বহিরাগতদের প্রবেশ নিয়ে কঠোর প্রস্তুতি নিয়েছে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ ।
নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনের দিন কোনো বহিরাগত শহরে প্রবেশ করতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ জায়েদুল আলম। শনিবার (১৫ জানুয়ারি) সকালে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি। এসপি জায়েদুল আলম বলেন, নির্বাচনের দিন কোনো বহিরাগতকে নারায়ণগঞ্জে প্রবেশ করতে দেব না। আগামীকাল (ভোটের দিন) নারায়ণগঞ্জ মহানগরে আমরা জাতীয় পরিচয়পত্র দেখে সবাইকে চলাচল করতে দেব। যারা কাল শহরে বের হবেন, আপনারা পরিচয়পত্র নিয়ে বের হবেন। কোনো অপ্রীতিকর ঘটনায় আমরা ছাড় দেব না।

এসপি বলেন, সবার প্রতি আহ্বান, কেউ যেন নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট করার চেষ্টা না করে। কেউ যদি বিশৃঙ্খলা করার চেষ্টা করে তাহলে তাদের কঠোরভাবে দমন করা হবে। তিনি আরও বলেন, আমরা কঠোর অবস্থানে আছি, কঠোর অবস্থানেই থাকব। মা-বোনেরাসহ যারা আছেন, আপনারা সকলে ভোটকেন্দ্রে আসবেন। কেউ বাধা দিলে আমরা কঠোর ব্যবস্থা নেব।

বঞ্চনা থেকে মুক্তি পেতে ভোটাররা হাতি মার্কায় ভোট দেবেন : তৈমূর >নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণার শেষ দিনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকারের মিছিল-পথসভায় বিএনপির পাশাপাশি জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরাও অংশ নিয়েছেন। শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) বিকেলে বন্দরে হাজারো মানুষ নিয়ে পথসভা করেন তিনি।

এর আগে সকালে অবশ্য সংবাদ সম্মেলনে তৈমূর অভিযোগ করেন, নির্বাচন কমিশন ঠুঁটো জগন্নাথ। আওয়ামী লীগ প্রার্থী আচরণবিধি লঙ্ঘন করলেও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না। উল্টো বিএনপি নেতাকর্মীদের ভয়ভীতি ও পুরোনো মামলায় গ্রেফতার করা হচ্ছে। এমনকি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোরও গুজব ছড়ানো হচ্ছে।

সকাল সাড়ে ১০টার দিকে শহরের মিশনপাড়া এলাকায় প্রধান নির্বাচনী ক্যাম্পে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তিনি নির্বাচনী কার্যক্রম শুরু করেন। এরপর বেলা ১১টায় মাসদাইরে নিজ বাসভবনে পোলিং এজেন্টের সঙ্গে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন।

পোলিং এজেন্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, যতো ভয়ভীতি দেখানো বা চাপ দেওয়া হোক না কেন, পোলিং এজেন্টদের ভোটকেন্দ্রে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

পরে বিকেলে বন্দরের সিরাজ উদ্দৌলা মাঠে পথসভায় অংশ নেন তৈমূর আলম খন্দকার। সেখানে মিছিল নিয়ে আসেন জাতীয় পার্টির নেতা ও মুছাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাকসুদ হোসেন, বন্দর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা আতাউর রহমান মুকুল। মিছিলে হাজারখানেক বিএনপি ও জাতীয় পার্টির নেতাকর্মী অংশ নেন। এরপর বন্দর এলাকার বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ করেন তিনি।

তৈমূর আলম খন্দকার সাংবাদিকদের বলেন, ১৮ বছরের চাপা ক্ষোভ-বঞ্চনা থেকে মুক্তি পেতে ভোটাররা হাতি মার্কায় ভোট দেবেন।

ভোটারদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ভাগ্যের পরিবর্তন চাইলে সব ভয়-ডর দূরে সরিয়ে হাতি মার্কায় ভোট দিতে স্মার্টকার্ড নিয়ে ভোটকেন্দ্রে যাবেন।

নৌকাকে হারানোর ক্ষমতা কারও নেই : আইভী : নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, আওয়ামী লীগের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। তিনি নৌকা আমার হাতে তুলে দিয়েছেন। আওয়ামী লীগের নেতাদের প্রতিও আমি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি, তারা সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে আমার পাশে দাঁড়িয়েছেন। নারায়ণগঞ্জের মানুষের মনের কথা আমার নেতারা বুঝেছেন।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) বিকেলে নারায়ণগঞ্জের ২ নম্বর রেলগেট এলাকায় নৌকার পক্ষে এক পথসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

আইভী বলেন, এই নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের ঘাঁটি, জনগণের ঘাঁটি। আওয়ামী লীগের জন্ম হয়েছিল নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়া মিউচুয়াল ক্লাবে। কিন্তু এ শহরকে কলুষিত করা হয়েছিল। সে কারণেই নেত্রী আমাকে নৌকা দিয়েছেন।

তিনি বলেন, আমার বাবা আওয়ামী লীগের একজন কর্মী ছিলেন। তিনি মানুষের কল্যাণে কাজ করেছেন। মাটি ও মানুষের নেতা ছিলেন। আমি দীর্ঘদিন আপনাদের জন্য কাজ করেছি।

আইভী বলেন, যখন শহরে কেউ ছিল না তখন নেত্রী আমাকে মনোনয়ন দিয়েছিলেন। ২০১১ সালে নির্বাচন করেছি। আপনারা লাখ ভোটের ব্যবধানে জয়ী করেছিলেন। ২০১৬ সালেও আপনারা একই কাজ করেছিলেন। এ নৌকা আইভীর নৌকা, বিজয়ের নৌকা, বঙ্গবন্ধুর নৌকা। এই নৌকাকে হারানোর ক্ষমতা কারও নেই।

তিনি বলেন, বিগত পাঁচ বছরে নারায়ণগঞ্জের আনাচে-কানাচে উন্নয়ন হয়েছে। আপনারা নিশ্চই এর ধারাবাহিকতা বজায় রাখবেন। আমি প্রতিটি ওয়ার্ডে ঘুরে দেখেছি। মাটি ও মানুষ বলছে নৌকা নৌকা। আমি নারায়ণগঞ্জবাসীকে অনুরোধ করব- আমাকে পাঁচ বছরের জন্য সুযোগ দেন। যে কোনো সময় অনেক কিছু ঘটে যেতে পারে। আমি আপনাদের জন্য মৃত্যুকেও বরণ করতে রাজি আছি। আমি ঘর-সংসারের দিকে তাকাইনি। আশা করি আপনারা আমাকে ফিরিয়ে দেবেন না।

পথসভায় আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও মেয়র প্রার্থী আইভীর নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সমন্বয়কারী জাহাঙ্গীর কবির নানক, আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই, সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহীদ বাদল প্রমুখ।

পথসভায় নারায়ণগঞ্জ সদর, বন্দর, সিদ্ধিরগঞ্জ ছাড়াও ফতুল্লা, পাগলা, রূপগঞ্জ, আড়াইহাজার ও সোনারগাঁয়ের হাজারো নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

 162 total views,  2 views today

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesba-zoom1715152249
© আইন আদালত প্রতিদিন। সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
ডিজাইন ও ডেভেলপে Host R Web