মঙ্গলবার, ১১ অগাস্ট ২০২০, ০১:০১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
এই অসহায় প্রতিবন্ধী ওয়াসিমের আর্তনাদ শুনার মত কি কেউ আছেন? কলাপাড়ায় অটো ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে গুরুতর আহত-৬ কলাপাড়ায় বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন করলেন এমপি মহিব দিশারি যুব ফাউন্ডেশনের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি-২০২০ এর শুভ উদ্বোধন সীতাকুণ্ডে ঈদ প্রীতি ম্যাচ ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত আজ সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার এল. কে. সিদ্দিকীর ৭মমৃত্যুদিবস কলাপাড়ার টিয়াখালীতে ঈদুল আযহা উপলক্ষ্যে বিশেষ ভিজিএফ’র চাল বিতরন কলাপাড়ায় ঘেরে মাছ ধরতে বাধা দেওয়ায় ঘের মালিক কে কুপিয়ে জখম কলাপাড়ায় করোনায় ব্যবসায়ীর মৃত্যু কলাপাড়ায় ক্লিনিক ও ডায়গনষ্টিক সেন্টারে স্বাস্থ্য বিভাগের অভিযান।
প্রথম ধাপে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন আগামী সপ্তাহে।

প্রথম ধাপে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন আগামী সপ্তাহে।

মিয়ানমার সরকারের নির্যাতনের মুখে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে একমত হয়েছে মিয়ানমার ও বাংলাদেশ। আগামী সপ্তাহে শুরু হচ্ছে প্রত্যাবাসন। বৃহস্পতিবার নিশ্চিত করেছেন মিয়ানমারের এক উর্দ্ধতন কর্মকর্তা ।

আগামী ২২ আগস্ট প্রাথমিকভাবে তিন হাজার ৫৪০ জন রোহিঙ্গা নাগরিককে ফিরিয়ে নেবে মিয়ানমার। বাংলাদেশ থেকে পাঠানো ২২ হাজারের বেশি রোহিঙ্গার তালিকা থেকে মিয়ানমার তিন হাজার ৫৪০ জনকে ফিরিয়ে নেয়ার জন্য বাছাই করেছে। এদের আগামী সপ্তাহে ফিরিয়ে নেয়া হবে।

বাংলাদেশের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা জানান, ছোট পরিসরে নতুন করে প্রত্যাবাসনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তবে কাউকে জোর করে ফেরত পাঠানো হবে না। বাংলাদেশ একটি নিরাপদ, স্বেচ্ছামূলক, মর্যাদাপূর্ণ ও টেকসই প্রত্যাবাসন ছাড়া আর কিছুই চায় না।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ২৫ আগস্টের পর থেকে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় প্রায় সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা। এর আগে বিভিন্ন সময়ে আরও প্রায় পাঁচ লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় আশ্রয় নিয়েছিল । ২০১৭ সালে আসা রোহিঙ্গাসহ ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা রোহিঙ্গাদের উখিয়া-টেকনাফের ৩১টি ক্যাম্পে জড়ো করে আশ্রয় দেয়া হয়েছে।

মিয়ানমার সরকার রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে দেশটির নাগরিক হিসেবে স্বীকৃতি দেয়নি। মিয়ানমার সরকার ১৩৫টি জাতিগোষ্ঠীকে সংখ্যালঘু জাতি হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে, রোহিঙ্গারা এই তালিকার অন্তর্ভুক্ত নয়।

মিয়ানমার সরকারের মতে, রোহিঙ্গারা হলো বাংলাদেশি, যারা বর্তমানে অবৈধভাবে মিয়ানমারে বসবাস করছে। যদিও ইতিহাস ভিন্ন কথা বলে। ইতিহাস বলে, রোহিঙ্গারা মিয়ামারে কয়েক শতাব্দী ধরে বসবাস করে আসছে।

 30 total views,  1 views today

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesba-zoom1715152249
© আইন আদালত প্রতিদিন। সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
ডিজাইন ও ডেভেলপে Host R Web