শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ১১:১৮ পূর্বাহ্ন

টিয়াখালী ইউনিয়ন বাসীর কাছে ভালোবাসার আরেক নাম চেয়ারম্যান শিমু মীর।।

টিয়াখালী ইউনিয়ন বাসীর কাছে ভালোবাসার আরেক নাম চেয়ারম্যান শিমু মীর।।

টিয়াখালী ইউনিয়ন বাসীর কাছে ভালোবাসার আরেক নাম চেয়ারম্যান শিমু মীর।।
মোঃ জুলহাস মোল্লা, কলাপাড়া।

কলাপাড়া উপজেলার ২নং টিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ মশিউর রহমান শিমু যেনো ইউনিয়ন বাসীর ভালোবাসার আরেক নাম।
তিনি নৌকা মার্কা নিয়ে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে ইউনিয়ন বাসীকে সু-সংগঠিত করে একনিষ্ঠ কাজ করে যাচ্ছেন অবিরাম। গ্রাম, মহল্লা, পাড়া,গঞ্জে চায়ের দোকান সর্বজায়গায় শিমু মীর নামটি ফুটে উঠেছে।
দ্বিতীয় বারের মত চেয়ারম্যান হিসাবে পাবার জন্য আশা বুক বেঁধে রেখেছে ইউনিয়ন বাসী।

টিয়াখালী বাসীর একমাত্র আস্থার প্রতীক হয়ে
সুখ দুঃখে সব সময় জনগনের পাশে থেকে কাজ করে যাচ্ছেন এমন মনে করেন ইউনিয়ন বাসী।

বিশ্বব্যাপি করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সবকিছু ত্যাগ করে তিনি তার জনগনের জন্য কাজ করেছেন।
নিজ কন্ঠে মানুষের সুরক্ষার জন্য সচেতনতা প্রচার করেন।
ঔ সময় ঘরমুখী মানুষের জন্য সরকারী বরাদ্দ ছাড়াও নিজ অর্থায়নে প্রায় ১৪০০ পরিবারের মাঝে খাবার তুলে দেন যা ইউনিয়নবাসীর কাছে দৃষ্টান্ত হয়ে রয়েছে।

মুজিব শতবর্ষে ইউনিয়নের গ্রাম গঞ্জের বিভিন্ন পয়ন্টের রাস্তা ঘাটে প্রায় ২০০০টি ফলজ, বনজ, ঔষুধী চারা রোপণ করেন তিনি।
চেয়ারম্যান হিসাবে শপথ নেবার পর থেকেই ইউনিয়ন বাসীর জন্য কাজ করে যাচ্ছে দূরান্ত ভাবে।

তিনি তার আপ্রাণ প্রচেষ্ঠায় কৃষকের কৃষি উপযোগী করে তোলার জন্য প্রায় ২০ কিঃ মি খাল খনন করেন। এই কার্যক্রম এখনো অব্যহত আছেন।
যাদের ঘর বাড়ী নেই এমন পরিবারের জন্য সরকারি বরাদ্দ ও নিজ অর্থায়নে ২৫ টি পরিবারের জন্য ঘর তুলে দেবার ব্যবস্থা করে দিয়েছে।

দুঃস্থ ২০০ মহিলাদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরন করেন।
স্বাস্থ্য সেবা উন্নতির জন্য ৪টি কমিউনিটি ক্লিনিক পুনঃভাবে অবকাঠামো নির্মান করেন।
রাস্তাঘাট, সার্কো, কালভার্ট তৈরী, ও মেরামতের জন্য স্থানীয় পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন।
রাস্তা ঘাটের উন্নয়নের জন্য তার অবদান অপরিসীম। জনগনের সুবিধার্থে তিনি তার চেয়ারম্যানের ৪ বছরে ৬ কিঃমি মাটির রাস্তা নির্মান, ৮ কিঃমি ইটের রাস্তা সলিংকরন, ৬ কিঃমি সিসি রাস্তা নির্মান করেন।
টিয়াখালী ইউনিয়নকে শতভাগ বিদ্যুতের আওতায় আনার জন্য তার প্রচেষ্ঠায় ঘরে ঘরে বিদ্যুত পৌঁছে দিয়েছেন।

চেয়ারম্যান শিমু মীর গ্রাম গঞ্জের মানুষের সুবিধার্থে ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডে হাট বাজার চালুর রাখার ব্যবস্থা করেন।

মসজিদ, মাদ্রাসা, মন্দির, বিদ্যালয়, অবকাঠামো উন্নয়নে তিনি কাজ করেছেন।
ইউনিয়নের বিভিন্ন পয়েন্টে লোকজনের চলাফেরা সুবিধা ও চুরি ছিনতাই প্রতিরোধে ষ্ট্রীট লাইটে নির্মান করেন।

হতদরিদ্র পরিবার, মসজিদ, মাদ্রাসা, মন্দির ও বিদ্যালয়ে সৌর বিদ্যুত স্থাপন করেন।
ইউনিয়নের জনস্বার্থের জন্য প্রায় ২৫০ টির বেশি গভীর নলকূপ স্থাপন করে দিয়েছেন।

কৃষকের সুবিধার্থে কালভার্ট ও বস্ক কালভার্ট নির্মান করে পানির অপসারসের ব্যবস্থা করেছেন ।
কাজের বিনিময়ে খাদ্য, ভিজিডি, ভিজিএফ, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি, বয়স্কভাতা, বিধবাভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, মাতৃত্বকালীন ভাতা, শীতবস্ত্র বাছাই করে হতদরিদ্রতার মাঝে পৌঁছে দেবার চেষ্ঠা করেছেন।
চেয়ারম্যান শিমু মীর গ্রাম আদালতের চেয়ারম্যান হিসাবে বিভিন্ন মামলা মোকদ্দমা নিস্পত্তিসহ ছোটঘাট ঝগড়া, বিবাদ, জমি জমা সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় সালিসের মাধ্যমে নিস্পত্তি করেছেন।
বাল্য বিবাহ, নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ, ও মাদক নিয়ন্ত্রনে তিনি স্বোচ্ছার প্রতিবাদী হয়ে কাজ করে যাচ্ছেন।

বিভিন্ন এতিম শিশুদের নিজ উদ্যোগে লেখাপড়া ব্যবস্থা করে দিয়েছেন
জননেত্রী শেখ হাসিনার মহাপ্রকল্প পায়রা বন্দর, ফোর লাইন সড়ক, সিক্স লাইন সড়ক, টিয়াখালী ব্রীজ, বালিয়াতলী সেতু ও সংযোগ সড়ক নির্মানে নিরালস ভাবে সহযোগিতা করেছেন এবং অধিগ্রহনকৃত ঘর বাড়ি, জমি টাকা উত্তেলনে জনগনের পাশে থেকে সহযোগিতা করেন

বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়া ও জননেত্রী শেখ হাসিনার গ্রামকে শহরের ন্যায় রুপান্তিত করার জন্য জিও, এনজিও ও নিজ উদ্যোগে আপ্রাণ ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।
উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে ভালোবাসার মানুষ শিমু মীর কে পুনরায় চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চায় ইউনিয়নবাসী।

 265 total views,  2 views today

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesba-zoom1715152249
© আইন আদালত প্রতিদিন। সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
ডিজাইন ও ডেভেলপে Host R Web