মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:০৯ পূর্বাহ্ন

কে হচ্ছেন বাউফল উপজেলা বিএনপি’র কান্ডারি?

কে হচ্ছেন বাউফল উপজেলা বিএনপি’র কান্ডারি?

কে হতে যাচ্ছেন পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলা বিএনপি’র কান্ডারী এমন প্রশ্ন এখন নেতা-কর্মীদের মুখে মুখে। নেতৃত্ব
পাওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় পর্যায়ে চলছে জোড়ালো লবিং ও তদবির। তবে এবারের কমিটিতে যোগ্য নেতৃত্ব ফিরে আসুক এমনটাই প্রত্যাশা করেন তৃনমূলের নেতা-কর্মীরা।
দলীয় সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর পটুয়াখালী জেলা বিএনপি’র কমিটি ভেঙ্গে গত বছরের ২রা নভেম্বর পটুয়াখালী জেলা বিএনপি’র দুই সদস্য বিশিষ্ট্য আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। বিএনপি’র মহাসচিব মির্জা ফকরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত ওই কমিটির আহবায়ক হচ্ছেন জেলা বিএনপি’র সাকে সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুর রশিদ চুন্নু মিয়া ও সদস্য সচিব হচ্ছেন স্নেহাংশু সরকার(কুট্ট্রি)।একই সাথে পরবর্তী ৭ দিনের মধ্যে ৩১ সদস্য বিশিষ্ট্য পটুয়াখালী জেলা বিএনপি’র আহবায়ক কমিটি গঠনেরও নির্দেশ দেয় হয়। এরপর পটুয়াখালী সদর উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক ও জেলা বিএনপি’র আহবায়ক কমিটির সদস্য কাজী মাহবুব বাউফল উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি গঠনের জন্য সাংগঠনিক দায়িত্ব পান । তিনি পরের মাস ১২ ডিসেম্বর বাউফলে এসে রাজনীতিতে দীর্ঘ দিন অনুপস্থিত থাকা ইঞ্জিনিয়ার ফারুক আহম্মেদ তালুকদারে সমর্থকদের সঙ্গে এবং পরের দিন সাবেক এমপি শহিদুল আলম তালুকদারের নেতৃত্বে নেতা-কর্মীদের সঙ্গে আলাদা আলাদাভাবে মতবিনিময় সভা করেন। পরে ফারুক আহম্মেদ তালুকদারের সমর্থকরা মোঃ শাহজাদা মিয়াকে আহবায়ক ও আব্দুর জব্বার মৃধাকে সদস্য সচিব প্রস্তাবনা করে একটি তালিকা জমা দেয় জেলা নেতৃবৃন্দের কাছে । তবে এ প্রস্তাবিত কমিটি নিয়ে বির্তক রয়েছে অনেক। বয়সের কারনে শারীরিক অবস্থা ভাল না থাকায় সাংগঠিনক কার্যক্রম পরিচালনায় অক্ষম প্রস্তাবিত কমিটির আহবায়ক শাহজাদা মিয়া । অপরদিকে কেন্দ্রীয় নির্দেশ উপেক্ষা করে গত ২১ জুন ধূলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে অংশ নেয় প্রস্তাবিত কমিটির সদস্য সচিব আঃ জব্বার মৃধার আপন ছোট ভাই নজরুল ইসলাম। ওই নির্বাচনে নিজের ভাইয়ের পক্ষে এবং পার্শ¦বর্তী উপজেলা বাকেরগঞ্জের দুর্গা পাশা
ইউনিয়নে নৌকা মার্কার এক প্রার্থীর পক্ষে প্রচার-প্রচারনা চালান তিনি । এক নেতা একটির বেশী পদে থাকতে পারবেন না এ নির্দেশনা অনুযায়ী উপজেলা
বিএনপি’র আহবায়ক হতে পারছেন না বাউফলের কাছিপাড়া ইউনিয়নের বাসিন্দা জেলা বিএনপি’র আহবায়ক আব্দুর রশিদ চুন্নু মিয়ার ছেলে ও কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-দপ্তর সম্পাদক মুহাম্মদ মুনির হোসেন। আর এ কারনেই রাজনৈতিক মাঠ ধরে রাখার জন্য ফারুক তালুকদারের সমর্থকদের দ্বারা প্রস্তাবিত কমিটি অনুমোদনের জন্য পায়তারা করতেছেন মুনির হোসেন । এমন অভিযোগ নেতা-কর্মীদের।অপরদিকে বিএনপি দলীয় সাবেক সাংসদ শহিদুল আলম তালুকদার নিজেকে আহবায়ক ও বাউফল পৌর বিএনপি’র সাবেক সাধারন সম্পাদক আপেল মাহমুদ ফিরোজকে সদস্য সচিব করে আরেকটি তালিকা জমা দেন জেলা বিএনপি’র নেতৃবৃন্দের কাছে। এরপর কমিটি গঠনে দীর্ঘসূত্রিতা দেখা দেয়।
বাউফল উপজেলা বিএনপি’র সাবেক ছাত্র ও সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক প্রভাষক মাসুদুর রহমান মাসুদ বলেন, এ আসন আওয়ামীলীগের হাত থেকে পুনঃরুদ্ধার করার জন্য সাবেক এমপি শহিদুল আলম তালুকদারের কোন বিকল্প নেই। ব্যাক্তি ইমেজ ও উত্তর বাউফল বলে খ্যাত একটি বিশাল ভোট ব্যাংক রয়েছে তাঁর। আর এ কারণে ভোটের রাজনীতিতে এখনও এগিয়ে আছেন তিনি। অতএব তাঁকেই উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক হিসেবে দেখতে চায় কর্মী-সমর্থকরা।সাবেক এমপি শহিদুল আলম তালুকদার বলেন, সমন্বয় করে উপজেলা ও পৌর বিএনপি’র আহবায়ক কমিটি গঠন করা না হলে দল ক্ষতিগ্রস্ত হবে। আগামীর রাষ্ট্র নায়ক তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে ও দেশমাতা বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে সমন্বিত একটি শক্তিশালী কমিটি গঠনের দাবি জানাই।কেন্দীয় কমিটির সহ-দপ্তর সম্পাদক মুহাম্মদ মুনির হোসেন বলেন, উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক কমিটি গঠনে আমি কোন প্রকার হস্তক্ষেপ করছি না। আর
হস্তক্ষেপ করার কোন সুযোগও নেই। জেলা কমিটি যাকে আহবায়ক করে কমিটি দেবেন, তাকেই আমি অভিনন্দন জানাব। জেলা বিএনপি’র আহবায়ক আব্দুর রশিদ চুন্নু মিয়া বলেন, সমন্বয় করে বাউফল
উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক কমিটি করা হবে। ছোট আকারে কমিটি গঠন করা হলেও কোন যোগ্য লোক কমিটি থেকে বাদ যাবে না।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesba-zoom1715152249
© আইন আদালত প্রতিদিন। সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
ডিজাইন ও ডেভেলপে Host R Web