বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১০:৪১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
যাত্রী কল্যাণ সমিতি হালিশহর থানা আহ্বায়ক কমিটি গঠিত ইন্টারন্যাশনাল হিউম্যান রাইটস কমিশন, বাংলাদেশ শাখার করোনা সচেতনতায় টিশার্ট ও মাস্ক বিতরণ অব্যাহত বিশ্ব নবী (সাঃ) কে অবমাননা করার প্রতিবাদে কলাপাড়ায় বিক্ষোভ ও সমাবেশ ॥ সরকারী জায়গায় ঘর তুলতে গিয়ে বাঁধার মুখে কলাপাড়া হাসপতালের জহির কলাপাড়া সাংবাদিক ফোরামে দেয়াল ঘড়ি দিলেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নিজাম উদ্দিন কলাপাড়ায় ইউপি সদস্য হত্যা মামলার তিন আসামী গ্রেপ্তার কলাপাড়া পৌর নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা হাসিব গাজীর প্রার্থীতা ঘোষণা কলাপাড়ার লালুয়ায় সাবেক এক ইউপি সদস্য’র রহস্যজনক মৃত্যু ঐতিহ্যবাহী চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির কার্যক্রম সফটওয়ার ডিজিটালাইশনের শুভ উদ্বোধন মুরাদপুর ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সম্মেলন সম্পন্ন
কলাপাড়ায় স্বামী পরিত্যক্তা সাবেকুন্নাহার দুই মেয়ে নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন.

কলাপাড়ায় স্বামী পরিত্যক্তা সাবেকুন্নাহার দুই মেয়ে নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন.

কলাপাড়ায় স্বামী পরিত্যক্তা সাবেকুন্নাহার দুই মেয়ে নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন.

কলাপাড়ায় স্বামী পরিত্যক্তা সাবেকুন্নাহার মেয়েকে নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করেছে। অর্থের অভাবে বন্ধ হয়ে গেছে বড় মেয়ের স্কুলে যাওয়া। স্বামী পরিত্যাক্তা সাবেকুন্নাহার জুটেনি স্বামীর বাড়ি স্থান, নেই বাপ দাদার ভিটা। অসহায় ভাবে ভাইয়ের ছোট্ট বাড়িতে বসবাস করছে।

বর্তমান ঠিকানা নীলগঞ্জ ইউনিয়নের রহমতপুর গ্রামের মুনাফ আলী মেয়ে সাবেকুন্ননাহার সাথে বরগুনার বেতাগী ইউনিয়নের ৭নং সরিষামুড়ি গ্রামের কলমদার খানের ছেলে ইয়াসিন খানের ২০০৫ সালে বিয়ে হয়।

সংসার জীবনে দুই কন্যা সন্তান জম্ম গ্রহন করেন। পরবর্তীতে ২০০৭ সালে গর্ভে সন্তান রেখে স্ত্রীর বড় ভাই মালেকের বাড়িতে রেখে পালিয়ে যায়। স্ত্রী তার গর্ভে সন্তান নিয়ে তার স্বামীর বাড়ি সহ বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করলে কোন খবর পাইনি।

তারপর সাবেকুন্নাহার অসহায় অবস্থায় নাবালক কন্যা ও গর্বে সন্তান অবস্থায় মানুষের বাড়ি কাজ করে জীবিকা নির্বাহ খরচ চালিয়ে থাকেন।

বর্তমানে সাবেকুন্নাহার দুই মেয়ে। বড় মেয়ে লাকি আক্তার (১০) ও ছোট মেয়ে মারিয়া আক্তার(৭)। ভাইয়ের বাসায় থেকে মানুষের বাড়ি কাজ করা অবস্থায় বড় মেয়ে লাকিকে চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করিয়েছেন।

চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত শেষ হয়ে যায় নাকি পড়াশোনা নতুন করে আলোর মুখ দেখতে চায় নাকি তবে অসহায় স্বামী পরিত্যক্তা সাবেকুন্নাহার এর পক্ষে পড়াশোনার খরচ করতে পারছে না।

স্বামী পরিত্যক্তা সাবেকুন্নাহার বলেন, বড় মেয়ে যখন পাঁচ বছর এবং ছোট মেয়ে ছয় মাসের গর্ভে তখন স্বামী ভাইয়ের বাসায় রেখে পালিয়ে যায়। স্বামীকে খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে ঢাকায় গিয়ে মানুষের বাড়ি বাড়ি কাজ করে দুটি মেয় কে বড় করেছি। করোনায় কাজ নাই, তাই ঢাকায় কোন কাজ না পেয়ে ভাইয়ের বাসায় এসেছি। দুই মেয়ে নিয়ে অনেক কষ্টে জীবন যাপন করছি। ওদের লেখাপড়া পোশাক দিতে পারছিনা। আমার ঘর নাই, বাড়ি নাই অনেক কষ্টে দিন কাটাচ্ছি মেয়েদের।

স্থানীয় হাসান পারভেজ বলেন, স্বামী পরিত্যক্তা সাবেকুন্নাহার খুবই কষ্টে দিন কাটাচ্ছে দুই মেয়েকে নিয়ে। এ মুহূর্তে তার একটি ঘর দরকার এবং দুই মেয়ের পড়াশোনার ব্যবস্থা করা উচিত তাই বিত্তবানদের এগিয়ে আসার অনুরোধ জানান তিনি।

 266 total views,  3 views today

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesba-zoom1715152249
© আইন আদালত প্রতিদিন। সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
ডিজাইন ও ডেভেলপে Host R Web